বৃহস্পতিবার,  ০৬ আগস্ট ২০২০  | সময় লোডিং...
প্রকাশ : ২১ আগস্ট ২০১৯, ১১:২৭:১৭

সমুদ্রে ভেসে এলো বোতলসমেত চিঠি

ডেস্ক রিপোর্ট
যুক্তরাষ্ট্র ও তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের মধ্যকার স্নায়ুযুদ্ধকালে সাহায্য চেয়ে একটি চিঠি বোতলবন্দি করে সমুদ্রে ভাসিয়েছিলেন রুশ নৌবাহিনীর এক কর্মকর্তা। সেই চিঠি যত দিনে গন্তব্যে পৌঁছল তত দিনে সাহায্যের প্রয়োজন ফুরিয়ে গেছে। এরই মধ্যে কেটে গেল ৫০ বছর। এত বছর পরেও, নিজের হাতে লেখা চিঠিখানি দেখে চোখের পানি সামলাতে পারেননি সেই নাবিক। এ যেন বর্তমানের তটে ভেসে আসা একটুকরা অতীত।
গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, অর্ধশতক পুরনো এই বোতলটির খোঁজ মিলেছে পশ্চিম আলাস্কার সমুদ্রতটে। আগুন জ্বালানোর জন্য খড়কুটো সংগ্রহ করছিলেন টেলর ইভানফ নামের স্থানীয় এক বাসিন্দা। ঝোপের মধ্য দিয়ে হাঁটার সময় হঠাৎই তিনি হোঁচট খান। তাকিয়ে দেখেন, সবুজ রঙের একটি বোতল পড়ে আছে। নোংরা ও বেশ পুরনো।
ইভানফের কথায়, ‘বোতলটি ভালো করে নিরীক্ষণ করে দেখলাম এর কর্কটা কোনো সাধারণ কর্ক নয়। বেশ মজবুত করে আটকানো। বোতলের ভেতরে আছে একটুকরা কাগজ।’
রাশিয়ান ভাষায় লেখা সেই চিঠির বিন্দুবিসর্গও বুঝতে পারেননি ইভানফ। মর্মার্থ উদ্ধারের সাহায্য চেয়ে ফেসবুকে পোস্ট করেন তিনি। এক রুশ নাগরিক তাঁকে বলেন, চিঠিটি ১৯৬৯ সালে লেখা। স্নায়ুযুদ্ধে অংশ নেওয়া এক রুশ নৌ সেনা সাহায্য চেয়ে বার্তাটি পাঠিয়েছিলেন।
চিঠিতে একটি ঠিকানা লিখে বলা হয়েছে, যিনি পাবেন, তিনি যেন জবাব দেন কিংবা সাহায্য পাঠান। চিঠিটি উদ্ধারের খবরের পর তা দেখানো হয় এর লেখক অবসরপ্রাপ্ত ক্যাপ্টেন অ্যানাতোলিকে। এরপর সংবাদমাধ্যমকে তিনি ৩৩ বছর বয়সে প্রশান্ত মহাসাগরে একা একটি যুদ্ধজাহাজ সামলানোর সেই অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেন।

 

এই পাতার আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Powered by orangebd.com